শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৪:৪০ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :

ইমাম শাফেয়ী (রহঃ)

আশরাফুল হোসেন / ১২৫ বার
আপডেট সময় : সোমবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২১

মিশরের ইসলামিক কায়রোর ডেড সিটিতে শত শত সাহাবা, নবী মোহাম্মদ (সাঃ) এর পরিবারের সদস্য, অলি আওলিয়া ও বুজুর্গদের সাথে চির নিদ্রায় শায়ীত আছেন ইমাম শাফেয়ী (রহঃ)।

কে সেই শাফেয়ী (রহঃ) ?

আবু আবদিল্লাহ মুহাম্মাদ ইবন ইদ্রিস আল-শাফেয়ী (أبـو عـبـد الله مـحـمـد ابـن إدريـس الـشـافـعيّ‎‎) ইসলামের প্রধান চারটি মাযহাবের একটি শাফেয়ী মাযহাবের প্রবক্তা। তাকে শায়েখ আল-ইসলাম হিসাবেও সম্বোধন করা হয়। মিশরের তৎকালিন আসকালনা প্রদেশের গাযাহ নামক স্থানে ১৫০ হিজরীতে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতার নাম ইদ্রিস, দাদার নাম ওসমান, পর দাদার নাম শাফেয়ী। পর দাদার নামানুসারে তাকে শাফেয়ী বলা হয়।

দুবছর বয়সে তাঁর পিতা মারা যান। অতঃপর তাঁর মাতা তাঁকে নিয়ে মক্কা চলে যান এবং সেখানে তিনি লালিত-পালিত হন। তিনি দশ বছর বয়সে পবিত্র কুরআন ও মুয়াত্তা মুখস্ত করেন। পরবর্তিকালে মদিনায় গিয়ে ইমাম মালেক (রহ)-এর নিকট ইলমুল ফিক্হ ও মুয়াত্তা শিক্ষা করেন। সেখান থেকে তিনি ইয়েমেন চলে যান। তখন তাঁর বয়স হয়েছিল ৩০ বছর। এখান থেকে তিনি ইরাক চলে এলে সেখানে প্রখ্যাত হানাফী ফকীহ ইমাম মুহাম্মদ ইবনে হাসান (রহঃ) এর সাথে সাক্ষাত পান এবং তাঁর সাথে শরীয়তের বিভিন্ন বিষয়ে মত বিনিময় হয়। ১৯৮ হিজরী সালে তিনি মিসর ফিরে আসেন।

ঈমাম শাফেয়ী (রহঃ) অধ্যাপনার মাধ্যমে তাঁর কর্মজীবনের সূচনা করেন, অতঃপর বাদশা হারুন আল- রশীদ এর খিলাফত কালে তিনি নাজরান প্রদেশের গভর্ণর নিযুক্ত হন। কিন্তু সেখানে বেশি দিন চাকরি করতে পারেন নি।

ইমাম শাফেয়ী (রহ) একজন মুহাদ্দিস, যুগশ্রেষ্ঠ ফিক্হবিদ ও কবি ছিলেন, হানাফী ও মালেকি ফিকহেও তিনি বিশেষ দক্ষ ছিলেন।

একটি ঘটনা : ইমাম শাফেয়ী (রহঃ) এর শাগরিদ ইমাম আহমদ ইবনে হাম্বল (রাহঃ) ‘মৃত্যু ২৪১ হিজরি’ সবসময় নামাযে ইমাম শাফেয়ী রাহ.-এর জন্য দোয়া করতেন। এতে তার পুত্র আবদুল্লাহ’র মনে কৌতূহল জাগল। তিনি জিজ্ঞাসা করলে, ইমাম আহমদ ইবনে হাম্বল (রাহঃ) বললেন –

ﻛﺎﻥ ﺍﻟﺸﺎﻓﻌﻲ ﻛﺎﻟﺸﻤﺲ ﻟﻠﺪﻧﻴﺎ ﻭﻛﺎﻟﻌﺎﻓﻴﺔ ﻟﻠﺒﺪﻥ، ﻭﻫﻞ ﺗﻌﺮﻑ ﻟﻬﺬﻳﻦ ﻣﻦ ﺧﻠﻒ অর্থাৎ শাফেয়ী ছিলেন পৃথিবীর জন্য সূর্য তুল্য আর দেহের জন্য সুস্থতা। তুমি কি এ দুয়ের বিকল্প কিছু জানো ?

২০৪ হিজরীর রজব মাসের প্রথম দিন জুম্মা’র রাত্রিতে ৫২ বছর বয়সে, এই মহান ব্যক্তিত্ব আল্লাহ রাব্বুল আল-আমিন এর ডাকে সারা দিয়ে চির বিদায় নিয়ে ইহজগত ত্যাগ করলে, ইসলামী কায়রোর ডেড সিটিতে দাফন করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com